রাঙ্গুনিয়ায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু। - দেশ প্রতিদিন

রাঙ্গুনিয়ায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু।

Spread the love

রাঙ্গুনিয়ায় এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) ভোর রাত ৪টার দিকে উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের ঠান্ডাছড়ি এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহত গৃহবধূর নাম জোস্না আক্তার (১৯)। তিনি ওই এলাকার বদিউল আলমের পুত্র মো. নাঈমের (২২) স্ত্রী।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের সাহেবনগর এলাকার দিনমজুর মো. হানিফের মেয়ের সাথে পার্শ্ববর্তী রাজানগর ইউনিয়নের ঠান্ডাছড়ি ২০নং টিলার বদিউল আলমের পুত্র মো. নাঈমের গত ছয়মাস আগে বিয়ে হয়। স্বামী মো. নাঈম ট্রাক ড্রাইভারের সহযোগী হিসেবে কাজ করতো। সংসারে ছোট দুই দেবর ও এক ননদ নিয়ে বিয়ের পর থেকে সুখেই সংসার চলছিল তার। ঘটনার দুইদিন আগে স্বামী ট্রাকে করে বাঙ্গালখালীয়ায় কাজে গেলে সোমবার রাতে ফেরার কথা থাকলেও ফেরেননি। রাতে স্বামীর দুই কক্ষবিশিষ্ট কক্ষের একটিতে গৃহবধূ ও অন্যটিতে তার দেবর ননদরা ঘুমিয়েছিল। গভীর রাতে ননদ বাথরুমে যাওয়ার উদ্দেশ্যে ভাবীকে ডাকতে গেলে কক্ষে না পেয়ে খুঁজতে থাকে। পরে রান্না ঘরে গিয়ে দেখে সেখানে জোস্না সিলিংয়ের সাথে ফাঁসিতে ঝুলে আছে। তার চিৎকারে ঘরের অন্যান্য সদস্যরা এগিয়ে এসে দেখে সে ফাঁসিতে ঝুলে মৃত্যুবরণ করেছে। পরে সকালে পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এই বিষয়ে জোস্নার পিতা মো. হানিফ বলেন, ‘আমার মেয়ে গত রবিবারও হাসিমুখে একটি সামাজিক বিয়ে অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ঘরে ফিরছিল। তার সংসারেও কোন ঝামেলা ছিল না এবং স্বামীও ঘরে ছিল না যে সে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করবে। এছাড়াও তাকে যেখানে পাওয়া গেছে সেখানে উপরের রান্না ঘরের ছাদ খুবই নিচে এবং তার পা মাটির সাথে লেগে আছে। তাই আমরা সন্দেহ করছি, কেউ তাকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছে।’

রাঙ্গুনিয়া থানার উপপরিদর্শক মো. মাহবুব হোসেন বলেন, “গৃহবধূর মৃত্যুর খবরে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তার ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করি। আমরা প্রাথমিক তার সুরতাহাল প্রতিবেদন সংগ্রহ করে এটি আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে ঘটনার রহস্য উম্মোচন হবে।”

deshprotidin

সত্যের সন্ধানে আমরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *