চট্টগ্রামতথ্যশীর্ষ খবরসর্বশেষ

মাদক প্রতিরোধে আবশ্যিক বিভিন্ন করনীয় সম্পর্কে মুক্ত আলোচনা – হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর

চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে আলোচিত ভয়ংকর মাদকের স্পট বরিশাল কলোনীতে র‌্যাব-৭ দ্বারা পরিচালিত অভিযান চলাকালীন ক্রস ফায়ারে নিহত হয়েছিল শহরের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। মাদকের বিরুদ্ধে র‌্যাবের সেই অভিযানে স্থানীয় ও দলীয় ভাবে সার্বিক সহযোগীতার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় উপ অর্থ সম্পাদক হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর৷

গত ২৯ এপ্রিল রোজ সোমবার চট্টগ্রামে হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের আহ্বানে আয়োজিত এক সাংবাদিক মত বিনিময় সভায় মাদক প্রতিরোধে আবশ্যিক বিভিন্ন করনীয় সম্পর্কে মুক্ত আলোচনা হয় । সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির অংশ হিসেবে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। মতবিনিময় সভায় হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর বলেন, সন্ত্রাসী চাঁদাবাজি করার দিন শেষ , মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার এই ডিজিটাল বাংলাদেশে চট্টগ্রামের মাটিতে মাদক ও সন্ত্রাসবাদের কোন ছাড় নেই, যেখানেই সন্ত্রাসবাদ দেখা যাবে সেখানেই গন প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে।

মাদক প্রতিরোধের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,চট্টগ্রামের যুব সমাজকে রক্ষার্থে ব্যক্তিগত ভাবে আমি মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্ছার ,যেখানে মাদকের প্রভাববৃদ্ধি পরিলক্ষিত হবে সেখানেই দলীয় উদ্যোগে ইতিমধ্যেই চট্টগ্রামের বিভিন্ন আলোচিত মাদক স্পটে প্রশাসনকে নিয়ে দূর্দান্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহন করে মাদকের ভয়ানক থাবা বন্ধে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রেখেছেন এই যুবলীগ নেতা হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর ।

মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে করনীয় কী এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মাদক বিক্রেতার বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর চেয়ে গুরুত্বপূর্ন করনীয় হলো মাদক সেবীদের আত্মশুদ্ধির ব্যবস্থা করা । প্রত্যেক অভিভাবকদের তার সন্তানের মঙ্গলের উদ্দেশ্যে নিজের সন্তান কোথায় যাচ্ছে, কাদের সাথে মেলামেশা করছে, বাসায় কেন দেরী করে ফিরছে , তার ব্যবহারে কোন আপত্তিজনক পরিবর্তন আসছে কিনা এই সবকিছুই প্রতিটি মুহূর্তে সজাগ দৃষ্টি ও পর্যালোচনায় রাখতে হবে। মাদক ও সন্ত্রাস দমনে রুখে দাড়াতে দল মত , ধর্ম , বর্ণ নির্বিশেষে সম্পূর্ন চট্টগ্রামবাসীর প্রতি সহযোগীতা কামনা ও আহ্বান জানান হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর।   

Comment here