তথ্যপরিবেশশীর্ষ খবরসর্বশেষ

ঠাকুরগাঁওয়ে কালবৈশাখী ঝড়ের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

গত রবিবার ঠাকুরগাঁওয়ে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতি গ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক কে এম কামরুজ্জামান সেলিম।জানা যায়, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শুকানপুকুরী ইউনিয়নের বাংরোড গ্রামের উপর দিয়ে আকস্মিক ঝড়ের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত ১৯টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ১৯টি পরিবারের ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার শুকানপুকুরী ইউনিয়নের বাংরোড গ্রামের উপর দিয়ে এ ঝড় বয়ে যায়।চার থেকে পাঁচ মিনিটের ওই ঝড়ে, ফনিভূষণ, নূর হক,খেলাফত, শফিকুল ইসলাম, জহুরা বেগম,মাসুদের ঘর-বাড়ি সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ১৯মে রবিবার বিকেলে শুকানপুকুরী ইউনিয়নের বাংরোড গ্রামে ১৯টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসাক কে এম কামরুজ্জামান সেলিম। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে শুকানপুকুরী ইউনিয়নের বাংরোড গ্রামের ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে চাল, ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়। ক্ষতিগ্রস্ত ১৯টি পরিবারের মধ্যে ফনি ভূষণ, খেলাফত আলী, জহুরা বেওয়া, মাসুদ, সফিকুল ইসলাম ও নুর হককে ৩০ কেজি চাল, ৯ হাজার টাকা ও ৩ বান করে ঢেউটিন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বাকি ১৩ টি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ঠাকুরগাঁওয়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নূর কুতুবুল আলম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ-আল-মামুন , সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সামিয়েল মার্ডি, শুখানপুকুরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান প্রমুখ। ক্ষতিগ্রস্তরা ঝড় হওয়ার তিন দিনের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী পেয়ে অনেক খুশি তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিমকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ।

Comment here