শিরোনাম
ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র পদে আমিন সরকারের বিজয় চাঞ্চল্যকর ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সোহেল গ্রেফতার ময়মনসিংহে ২ কেজি গাঁজাসহ একজন গ্রেফতার জাককানইবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ফাহাদ, সম্পাদক আসলাম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭ জানুয়ারি আজ সন্ধ্যা ৭টায় সিইসির ভাষণের মাধ্যমে তফসিল ঘোষণা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে আফ্রিকার প্রাণী নীলগাই, জেব্রা ও কমনইল্যান্ড পরিবারে যুক্ত হলো পাঁচ নতুন ত্রিশালের সাখুয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রিফাত ও সম্পাদক রিজন জয়পুরহাটের কালাইয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত অধিকার নেতৃবৃন্দের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ময়মনসিংহে মৌন মানববন্ধন

আসল জিরা চিনবেন কীভাবে?

  • আপডেট সোমবার, ২২ জুন, ২০২০
  • ৩৬৪ দেখেছে
জিরা

জিরার নামে আমরা সস্তা দামের মৌরি, সলুক ও ক্যারাওয়ে খাচ্ছি! জিরাতে ভেজালের পরিমাণটা একটু বেশিই থাকে। এটি রোদে শুকিয়ে বিক্রি করা হয় বলে নির্যাস বের করে নিলেও বোঝা যায় না। এক্ষেত্রে পরখ করতে হয় জিরার স্বাদ ও গন্ধ। দু’একটি জিরা মুখে দিয়ে চিবিয়ে দেখুন। আসল জিরা হলে এর স্বাদ হবে ঝাঁঝালো ও গন্ধ হবে তীব্র।

সলুক বা ডিল সীড
সলুক দেখতে অবিকল চিকন জিরার মতোই। ইহাকে ইংরেজিতে ডিল সিড বলে। সাধারণত যে কোনো মানুষ এসব বীজকে চিকন জিরা হিসেবেই চিনে। কিন্তু ডিল সিড এক শ্রেণির তৈল বীজ যা, আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হওয়ায় ডিল সিডের চাহিদা রয়েছে বাংলাদেশে। সলুকের বীজে সুগন্ধি আছে কিন্তু ঝাঁঝালো ও গন্ধ তেমন তীব্র নই। সলুকের দাম জিরার তিন ভাগের একভাগ।

মৌরি
মসলার জগতে মৌরি একটি প্রসিদ্ধ নাম। মৌরির ইংরেজি নামঃ Fennel। হোটেল- রেস্তোরাঁয় খাবারের পর বাটিতে করে সুগন্ধিযুক্ত এই মৌরি বা মিষ্টি জিরা পরিবেশন করা হয়। আন্তর্জাতিক বাজারে বুকিং রেট জিরার তিন ভাগের একভাগ।
ক্যারাওয়ে
‘ক্যারাওয়ে’ দেখতে রান্নার অনন্য উপকরণ চিকন জিরার মতোই। বাজারে ‘চিকন জিরা’ হিসেবে বিক্রি হচ্ছে মিশর থেকে আসা ‘ক্যারাওয়ে’। মসলা গবেষকদের মতে, দেখতে একই রকম হওয়ায় এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী ক্যারাওয়ে আমদানি করে চিকন জিরার সাথে মিশিয়ে বিক্রি করছেন। পাশাপাশি চিকন জিরা হিসেবে ব্যবহারের কারণে রসনার সত্যিকারের স্বাদও বদলে যাচ্ছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে বুকিং রেট খুবই কম হওয়ায় সেই সুযোগে কম দামের ডিল সীড ও ক্যারাওয়ে আমদানি করছে অসাধু চক্র তারপর চিকন জিরার সাথে মিশিয়ে বিক্রি করছে।

এক্সপার্ট ছাড়া চিকন জিরা চিনা, সাধারণ মানুষের পক্ষে খুবই কষ্টসাধ্য একটা ব্যাপার। কারণ এক অনুসন্ধানে উঠে এসেছে ৩০ কেজি চিকন জিরার বস্তার সাথে ডিল বা ক্যারাওয়ে সীড অনায়াসে মেশানো যায়।

তাই আমাদের ভেজালমুক্ত চিকন জিরা পেতে হলে দুটো পথ খোলা। হয়তো ব্র্যান্ডের ৩০ কেজির বস্তা কিনতে হবে না হয় সৎ উদ্যোক্তা থেকে নির্ভেজাল চিকন জিরা কিনতে হবে। সত্যিকারের রসনার স্বাদ পেতে হলে এছাড়া আমাদের আর কোন গতি নেই।

ফাউন্ডার: রন্ধন মসলা

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংক্রান্ত আরও খবর

ফেইসবুক পেজ

error: Content is protected !!