শিরোনাম
পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে নির্মাণ শ্রমিকদের দিনব্যাপী মৌলিক প্রশিক্ষণ জেলা তথ্য অফিস কর্তৃক ৪০ তম বিসিএসে নবনিযুক্ত কর্মকর্তাবৃন্দকে সংবর্ধনা জামালপুর জেলা আ.লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন   ত্রিশালে কিশোর-কিশোরী ও নারী উন্নয়ন সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা ইসলামপুরে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি কাজের শুভ উদ্বোধন  ত্রিশালে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও শিক্ষার্থীদের রান্না করা খাবার পরিবেশন  জাতীয় পার্টি ফুলবাড়ীয়া উপজেলা শাখার আহ্বায়ক কমিটি গঠিত জামালপুর ইসলামপুর বিনামূল্যে বীজ সার বিতরণ ও কৃষক সমাবেশ ত্রিশালে ভোক্তা অধিকারের অভিযান, ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা মাওলানা ভাসানীর ৪৬তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

মাদক কারবারিদের হামলায় সাংবাদিকসহ আহত ২

 রাকিবুল হাসান ফরহাদ
  • আপডেট মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ২১ দেখেছে

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মাদক কারবারিদের হামলায় সাংবাদিকসহ দুইজন আহত হয়েছে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের চর আলগী গ্রামের হাসিম উদ্দিন মোড় এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ওই সাংবাদিকের নাম মো. জাহাঙ্গীর আলম। তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক ভোরের আকাশ পত্রিকার ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত।

মাদক কারবারিরা হলো- স্থানীয় হাসিম উদ্দিনের ছেলে মো. মাহবুব (৩২), তাহের উদ্দিনের ছেলে নবী হোসেন (৪০) ও মো. মোস্তফা (৫০)। এছাড়া হাসিম উদ্দিনের (২) ছেলে আবুল কাশেমসহ (৩৪) আরও কয়েকজন।

এ বিষয়ে সাংবাদিক মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, উচাখিলা ইউনিয়নের চর আলগী গ্রামে মাদক কারবারিদের বড় একটি চক্র গড়ে উঠেছে। ফলে এলাকার যুব সমাজকে নিয়ে আতঙ্কিত বিভিন্ন পরিবার। স্থানীয় লোকজন এমন তথ্য দিলে সংবাদ প্রকাশের জন্য তথ্য সংগ্রহ করতে গত শনিবার রাতে সরেজমিনে হাসিম উদ্দিন মোড়ে যাই। এসময় মাহবুব নামে একজনের দোকানের উপরের ছাঁদে বসে ঝাপসা আলোয় কয়েকজন মাদক কারবারিকে মাদক কেনাবেচাসহ সেবন করতে দেখা যায়। এমতাবস্থায় ক্যামেরা দিয়ে গোপনে ভিডিও ধারণ করা শেষ হলে একপর্যায়ে তারা দেখে ফেলে। এসময় তারা হামলা করতে তেড়ে আসলে দৌড়ে পালিয়ে আত্মরক্ষা করা হয়।

তিনি বলেন, পরদিন দুপুর ১২টার দিকে ওই মাদক কারবারিরা আমার বাড়িতে এসে ভিডিও ডিলিট করতে হুমকি দেন। তা না হলে ক্যামেরা ভাঙচুর করে আমাকে হত্যার পর লাশ ঘুম করারও হুমকি দেওয়া হয়। এমন হুমকিতে ভিডিও ডিলিট না করায় আমাকে কিল-ঘুষি দিয়ে মাটিতে ফেলে পাশে থাকা লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যার চেষ্টা করে।

এমতাবস্থায় আমার মা বাচাতে আসলে তাঁকে মারধর করে আহত করা হয়। পরে পরিবারের লোকজন এগিয়ে আসলে পালিয়ে যান তারা। পরে আমাদেরকে উদ্ধার করে স্থানীয় বাজারে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

সাংবাদিক মো. জাহাঙ্গীর আলমের মা মদিনা খাতুন বলেন, যেকোনো সময় মাদক কারবারিরা আবারও আমাদের উপর অতর্কিত হামলা করতে পারে। আমরা নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি। এদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হোক।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতের আঁধারে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদক কেনাবেচার রমরমা ব্যবসা চলে। যারা মাদক বেচাকেনা করে তারা বিভিন্ন মাদকও নিয়মিত সেবন করে। কিন্তু এদের সাথে স্থানীয় কিছু ব্যক্তির সম্পর্ক ভালো থাকায় কেউ কিছু বলতে সাহস পায়না।

তবে মাদক কারবারী মো. মাহবুবের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি। ফলে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাছিনুর রহমান বলেন, মাদক ব্যবসায়ীসহ সেবনকারীদের গ্রেপ্তার করতে বিভিন্ন এলাকায় নিয়মিত অভিযান চলছে। ওই মাদক কারবারিদের সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংক্রান্ত আরও খবর

ফেইসবুক পেজ

error: Content is protected !!