শিরোনাম
ইসলামপুরে আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল ইসলামপুরে শুরুতেই লুটপাটের মুখে কর্মসৃজন প্রকল্প যুবলীগ প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৮৪তম জন্ম বার্ষিকী পালিত  আ’লীগের সম্মেলনকে ঘিরে পাঁচ বাসকে অনির্দিষ্টকালের বরখাস্ত ইসলামপুরে শহর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ইসলামপুরে শীতার্ত ব্যক্তিদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ জামালপুরে আখ মাড়াই মৌসুমের ৬৫তম শুভ উদ্বোধন টিকেট কালোবাজারি চক্রকে হাতেনাতে ধরতে যাত্রী সেজে ইউএনও রেলস্টেশনে পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে নির্মাণ শ্রমিকদের দিনব্যাপী মৌলিক প্রশিক্ষণ জেলা তথ্য অফিস কর্তৃক ৪০ তম বিসিএসে নবনিযুক্ত কর্মকর্তাবৃন্দকে সংবর্ধনা

ত্রিশালে ভাসুরের টাকা স্বর্ণালংকার নিয়ে ফেরৎ দেয়ার নামে টালবাহানা

  • আপডেট শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩১৭ দেখেছে

স্বামীর সংসার থেকে টাকা পয়সা নিয়ে বাপের বাড়ি পাঠানো ছিল হাবিবা খাতুনের (২৫) প্রায় নিত্য অপকর্ম । শেষবার সেই অপকর্ম ডিঙিয়ে গড়িয়ে ভাসুরের বাড়িতে। ভাসুরের ঘরে থাকা নগদ ৪ লাখ টাকা সাথে ১০ ভড়ি স্বর্ণালংকার নিয়ে গেছে। হাবিবার এহেন ঘটনার প্রতিকারের অভিযোগ গড়িয়েছে, গ্রাম্য সালিশ, থানা পুলিশ এমনকি আদালত পর্যন্ত । স্থানীয়রা বলছেন, হাবিবাই কেবল নয় , তার গোটা পরিবারই প্রতারক শ্রেণির ।।

ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নে । অভিযোগ, হরিরামপুর ইউনিয়নের বাদামিয়া মীরবাড়ি গ্রামের হোসাইন আহমেদ সুরুজের মেয়ে হাবিবা খাতুন । স্থানীয় হরিরামপুর গ্রামের আবু সাইদের সাথে ৫ বছর আগে বিয়ে হয় তার । এসময় তাদের কোলজুড়ে আসে দুইজন সন্তান । স্বামীর চাকুরির সুবাদে তারা বাইরে বসবাস করত ।

সেসময় স্বামীর সংসার থেকে টাকা- পয়সা সরিয়ে বাপের বাড়ি দিয়ে দিত হাবিবা । গত ২৪ – ৬ ২০ ইং তারিখে হাবিবা তার স্বামী আবু সাঈদের বড় ভাই অর্থাৎ ভাসুর হাবিবুর রহমানের ঘরে রাখা ব্যবসার ৪ লাখ টাকা এবং ১০ ভড়ি স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে যায় । স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে দেন দরবারের মাধ্যমে টাকা ও স্বর্ণালংকার ফেরৎ চাওয়া হলে ফেরৎ দেয়ার প্রতিশ্রতি দিয়ে টালবাহানা শুরু হয় । ঘটনা গড়ায় থানা পুলিশে । সেখানেও ফেরৎ দেয়ার কথা বলে চলতে থাকে সময় ক্ষেপণ । হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে ময়মনসিংহের বিজ্ঞ আদালতে মামলা করেন ।

আদালতের নির্দেশে মামলা তদন্তের দায়িত্ব বর্তায় ত্রিশাল থানার পুলিশের কাছে । থানার এসআই আবদুল কাইয়ুম মামলার তদন্ত শুরু করেন । তদন্তকারী এই কর্মকর্তা জানান, সরেজমিনে বিষয়টির তদন্ত করা হচ্ছে । সত্যতা পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে । ভূক্তভোগী হাবিবুর রহমান জানান, ছোট ভাই বৌ হাবিবা খাতুন তার বাবা হোসাইন আহমেদ সুরুজের পরামর্শে টাকা চুরি করে নিয়ে যায় ।

স্থানীয় আাবুল হাশেম জানান, হাবিবা খাতুন ও তার বাবা হোসাইন আহমেদ সুরুজ টাকা ও স্বর্ণলংকার নেয়ার কথা স্বীকার করলেও তা ফেরৎ দিচ্ছে না । তারা প্রতারক শ্রেণির লোক । ভূক্তিভোগী এর একটা বিহীত অর্থাৎ প্রতিকার চান ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংক্রান্ত আরও খবর

ফেইসবুক পেজ

error: Content is protected !!