শিরোনাম
ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র পদে আমিন সরকারের বিজয় চাঞ্চল্যকর ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সোহেল গ্রেফতার ময়মনসিংহে ২ কেজি গাঁজাসহ একজন গ্রেফতার জাককানইবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ফাহাদ, সম্পাদক আসলাম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭ জানুয়ারি আজ সন্ধ্যা ৭টায় সিইসির ভাষণের মাধ্যমে তফসিল ঘোষণা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে আফ্রিকার প্রাণী নীলগাই, জেব্রা ও কমনইল্যান্ড পরিবারে যুক্ত হলো পাঁচ নতুন ত্রিশালের সাখুয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রিফাত ও সম্পাদক রিজন জয়পুরহাটের কালাইয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত অধিকার নেতৃবৃন্দের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ময়মনসিংহে মৌন মানববন্ধন

ডিসি সুলতানা পারভীনের বিরুদ্ধে তদন্তের সিদ্ধান্ত

  • আপডেট সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০
  • ২৪৭ দেখেছে
কুড়িগ্রামের সাবেক জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন

কুড়িগ্রামের সাবেক জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনের বিরুদ্ধে সাংবাদিক নির্যাতনের অভিযোগের অধিকতর তদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার কার্যক্রমও চলমান রয়েছে। আজ সোমবার এনটিভি অনলাইনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

টেলিফোনে এনটিভি অনলাইনকে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনকে আমরা তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যাহার করে নিয়েছি। তাঁর বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খলা অনু বিভাগে অনুসন্ধান ও শুনানি কার্যক্রম চলমান রয়েছে।’

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে সুলতানা পারভীন, আরডিসি নাজিম উদ্দিন ও সহকারী কমিশনার রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এস এম রাহাতুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এ মামলার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। অধিকতর তদন্তে তিনি (সুলতানা পারভীন) দোষী প্রমাণিত হলে অবশ্যই তাঁকে শাস্তি ভোগ করতে হবে।’

গত ১৪ মার্চ কুড়িগ্রামে মধ্যরাতে সাংবাদিক আরিফুল ইসলামের বাড়িতে ঢুকে তাঁকে ধরে নিয়ে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত এক বছরের কারাদণ্ড দেন। আরিফের বাড়িতে আধবোতল মদ ও গাঁজা পাওয়ার অভিযোগ এনে তাঁর ওপর অমানসিক নির্যাতন চালানো হয়। সাংবাদিক আরিফকে শাস্তি দেওয়া ভ্রাম্যমাণ আদালতের আদেশে স্বাক্ষরকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিন্টু বিকাশ চাকমা ১৮ জুন বিভাগীয় মামলার জবাবে জানান, তিনি সাজার আদেশে (পরোয়ানায়) স্বাক্ষর করতে বাধ্য হয়েছিলেন।

গত ১৮ জুন নির্বাহী বিভাগীয় মামলায় অভিযোগের জবাবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিন্টু বিকাশ চাকমা আরো জানান, জেলা প্রশাসকের নির্দেশনার কথা বলে তাঁকে স্বাক্ষর করতে চাপ দেন আরডিসি নাজিম উদ্দিন। দীর্ঘ ১৮ ঘণ্টা পর প্রসিকিউশন পক্ষকে ডিসি অফিসে ডেকে এনে নথিতে স্বাক্ষর করানো হয় বলে জানান রিন্টু বিকাশ চাকমা।

রিন্টু বিকাশ চাকমার দাবি, নাজিম উদ্দিন পেশকার সাইফুল ইসলামকে ডিসি অফিসে জব্দ তালিকা তৈরির নির্দেশ দিলে, পরে আধা লিটার মদ ও দেড়শ গ্রাম গাঁজা উদ্ধারের বিষয়টি তিনি জেনেছেন।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত এসব প্রতিবেদন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নজরে পড়েছে বলে জানিয়েছেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এরপরই মন্ত্রণালয় সুলতানা পারভীনের বিরুদ্ধে অধিকতর তদন্তের উদ্যোগ নেয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংক্রান্ত আরও খবর

ফেইসবুক পেজ

error: Content is protected !!